মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৬:২৫ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
তানোরে ধর্ষণ চেস্টার অভিযোগে আটক ব্যক্তিকে ১৫৪ ধারায় চালান খানসামায় বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে যুবকের মৃত্যু ২৪ ঘন্টায় আরও ২৮৭ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি করোনা রোগীদের জন্য হাসপাতালে শয্যা বাড়াতে রিট দেড় লাখ টাকায় মিনুর সাথে কুলসুমীর চুক্তি রাজ কুন্দ্রার দুটি অ্যাপ থেকে ৫১ টি পর্নো ভিডিও জব্দ নিয়মিত মাদক সেবন করতেন নায়িকা একা দুমকিতে পায়রা নদী ভাঙ্গন পরিদর্শনে জেলা প্রশাসক বসুরহাটে ওবায়দুল কাদেরের বাড়ির সামনে ককটেল বিস্ফোরণ, কার্তুজ-ককটেল উদ্ধার উদ্বোধনের অপেক্ষায় দৃষ্টিনন্দন আত্রাইয়ের ভূমি অফিস ‘রাতের রানী পিয়াসা ও মৌয়ের কাজ ছিল ব্ল্যাকমেইল করা’ বাসায় মিললো মদ, মডেল মৌ বলছেন ‘ডিবি এনেছিল’ এবার মোহাম্মদপুরে মদসহ মডেল মৌ আটক হেলেনার পর জননেত্রী পরিষদের দর্জি মনির এবার গ্রেপ্তার পিয়াসার বাসায় যা মিললো

কৃষকের ৩০০ আমগাছ কেটে দিলেন বন কর্মকর্তা

প্রতিবেদক: কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় এক কৃষকের দুই একর জমিতে রোপণ করা তিন শতাধিক আমগাছ কেটে ফেলেছেন বন বিভাগের এক কর্মকর্তা। কৃষক নবী হোসেন দাবি করেন, এই বাগান সরকারি জায়গায় বলে প্রতিনিয়ত টাকা দাবি করতেন বন বিভাগের কর্মকর্তারা। আর টাকা না পেয়ে তারা গাছগুলো কেটে দিয়েছেন। যদিও কর্মকর্তারা সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

কৃষক নবী হোসেন বলেন, ‘বিগত ৪/৫ বছর ধরে দুই একর জমিতে আমি আমবাগান গড়ে তুলি। এই বাগানের আয় দিয়ে আমার সংসার চলে। ৪/৫ বছর ধরে বন বিভাগের চাহিদা মতো টাকা দিতে পারলেও এবার লকডাউনের কারণে দিতে পারিনি। এছাড়াও এবার এক লাখ টাকা দাবি করেন শামলাপুর বন-বিট কর্মকর্তা ফেরদৌস তুহিন। এ নিয়ে গত কয়েকদিন তর্কাতর্কির পর আজ শনিবার (১০ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে আমার বাগানের সব গাছ কেটে দিয়ে যায়।’

নবী হোসেন বলেন, লকডাউনের মধ্যে গাছের সব আম বিক্রি করতে পারেননি। এর মধ্যে সব গাছ কেটে শেষ করে দিয়েছেন। তিনি এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।

নবী হোসেনের ছেলে মো. ইমরান বলেন, ‘টাকা দিতে না পারায় তিন শতাধিক আমগাছ কেটে দিয়েছেন তারা। আমি চার হাজার টাকা দিতে চেয়েছি, ওরা এক লাখ টাকা দাবি করছে। কিন্তু এই কঠিন সময়ে এত টাকা কোথায় পাবো?’

বিষয়টি নিশ্চিত করে বাহারছড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজ উদ্দিন বলেন, ‘ওখানে আরও অনেকের আম বাগান রয়েছে। একজনের গাছ কেটে দিলে তো প্রশ্ন আসে কিছু উদ্দেশ্য রয়েছে। নবী হোসেনের কাছে টাকা চেয়েছে এটা শুনেছি। সবাই টাকা দিয়ে বাগান করছে।’

টেকনাফ উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন বলেন, ‘টাকা দিতে না পারায় এভাবে নির্বিচারে গাছ কেটে ফেলা সত্যি দুঃখজনক। এ বিষয়ে জানার জন্য বিট কর্মকর্তা ফেরদৌসকে আমি ফোন দিলেও তিনি কথা বলতে চাননি। শুনে আসছি, কিছু লোক দিয়ে তিনি প্রত্যেক বাগান থেকে টাকা তোলেন।’

গাছ কাটার বিষয় স্বীকার করে কক্সবাজার দক্ষিণ বন-বিভাগের হোয়াইক্যং রেঞ্জের শামলাপুর বিট কর্মকর্তা ফেরদৌস তুহিন বলেন, ‘বাগানের গাছ কেটে সেখানে সামাজিক বনায়ন করা হবে। সেই জন্য গাছগুলো কেটে ফেলা হয়েছে।’ তবে টাকা দাবির বিষয়টি তিনি এড়িয়ে যান।

এ ব্যাপারে কক্সবাজার দক্ষিণ বন-বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. হুমায়ন কবির বলেন, ‘টাকা নেওয়ার বিষয়টি তদন্ত করা হবে। যদি প্রমাণিত হয়, তাহলে অবশ্যই অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Please Share This Post in Your Social Media

https://twitter.com/WDeshersangbad


বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

https://www.facebook.com/Dsangbad

https://www.facebook.com/Dsangbad

© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone