সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৯:৫৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
তানোরে ধর্ষণ চেস্টার অভিযোগে আটক ব্যক্তিকে ১৫৪ ধারায় চালান খানসামায় বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে যুবকের মৃত্যু ২৪ ঘন্টায় আরও ২৮৭ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি করোনা রোগীদের জন্য হাসপাতালে শয্যা বাড়াতে রিট দেড় লাখ টাকায় মিনুর সাথে কুলসুমীর চুক্তি রাজ কুন্দ্রার দুটি অ্যাপ থেকে ৫১ টি পর্নো ভিডিও জব্দ নিয়মিত মাদক সেবন করতেন নায়িকা একা দুমকিতে পায়রা নদী ভাঙ্গন পরিদর্শনে জেলা প্রশাসক বসুরহাটে ওবায়দুল কাদেরের বাড়ির সামনে ককটেল বিস্ফোরণ, কার্তুজ-ককটেল উদ্ধার উদ্বোধনের অপেক্ষায় দৃষ্টিনন্দন আত্রাইয়ের ভূমি অফিস ‘রাতের রানী পিয়াসা ও মৌয়ের কাজ ছিল ব্ল্যাকমেইল করা’ বাসায় মিললো মদ, মডেল মৌ বলছেন ‘ডিবি এনেছিল’ এবার মোহাম্মদপুরে মদসহ মডেল মৌ আটক হেলেনার পর জননেত্রী পরিষদের দর্জি মনির এবার গ্রেপ্তার পিয়াসার বাসায় যা মিললো

ভূঞাপুরে যমুনায় আবারও ভাঙন শুরু

 

মো: নাসির উদ্দিন, ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি: যমুনার নদীর পানি কমতে থাকায় টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার গোবিন্দাসী ইউনিয়নের খানুরবাড়ী ও কষ্টাপাড়া এলাকায় আবারও তীব্র ভাঙন দেখা দিয়েছে। এতে দিশেহারা হয়ে পড়েছে নদীপারের ভাঙন কবলিত মানুষ। বুধবার (০৭ আগস্ট) দুপুরে সরেজমিনে এমন চিত্র দেখা যায়। এদিকে এখন পর্যন্ত ভাঙন রোধে কার্যকর কোন উদ্যোগ নেয়নি টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন বোর্ড।

জানা যায়, গত জুলাই মাসে যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধির ফলে ভাঙন শুরু হয়। এতে ভাঙনে উপজেলার গোবিন্দাসী ইউনিয়নের খানুরবাড়ী, কষ্টাপাড়া ও ভালকুটিয়া গ্রামের ২’শতাধিক পরিবার গৃহহীন হয়ে পড়েছে। ঘর-বাড়ী নদীগর্ভে চলে যাওয়ায় অন্যত্র গিয়ে রাস্তার পাশে মানবেতর জীবন করছে ভাঙন কবলিত পরিবারগুলো। দুই সপ্তাহের বন্যায় ঘর-বাড়ী তলিয়ে যাওয়ায় হতাশা ও ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে পড়েন। অপরদিকে বন্যা কাটিয়ে গেলেও আবারও যমুনা নদীতে ভাঙন শুরু হয়েছে। এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে যমুনা নদীর তীরবর্তী মানুষ। এছাড়াও বন্যায় কৃষি জমির সব ফসল বানের পানিতে ভেসে গেছে। ফলে চরম বিপাকে পরেছে পরিবারগুলো।

উপজেলার কষ্টাপাড়া গ্রামের আছমা বেগম জানান, সম্প্রতি বন্যায় কষ্টাপাড়া এলাকায় ব্যাপক ভাঙন দেখা দেয়। ফলে তার বাড়ীর আশপাশের অনেক ঘর-বাড়ী নদীগর্ভে বিলীণ হয়ে যায়। তার বাড়িটি আংশিক ভেঙ্গে যাওয়ার পরেই বন্যার পানি কমে যায় এবং ভাঙ্গন বন্ধ হয়। এরপর পানি কমে যাওয়ার সাথে সাথেই আবারও তীব্র ¯্রােতে তার বাড়ীটিও ভেঙ্গে যায়। ভালকুটিয়া গ্রামের বিশা মন্ডল জানান, ইতোমধ্যেই বন্যার কয়েকদিন পূর্বে যমুনার তীব্র ভাঙনের শিকার হয়ে প্রায় ৩’শতাধিক ঘর-বাড়ী নদী গর্ভে বিলিন হয়েছে। আবারও নতুন ঘরবাড়ি নদী গর্ভে বিলিন হয়ে সর্বশান্ত হয়ে পরেছে তারা। এসব ভাঙন কবলিত মানুষ ঘর বাড়ি ও ফসলি জমি হারিয়ে অর্থ কষ্টে মানবেতর জীবন যাপন করলেও তাদের সাহায্যের জন্য এখনও কেউ এগিয়ে আসেনি।

নিকরাইল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন মন্ডল জানান, চোখের সামনে ৩’শ বছরের পুরাতন বসতির ঘর-বাড়ি নদী গর্ভে চলে যাচ্ছে। প্রশাসন থেকে কার্যকর কোন উদ্যোগ গ্রহন না করায় ভাঙনে প্রতিদিন নতুন ঘর-বাড়ী যমুনা নদীতে বিলীন হচ্ছে। ভাঙনরোধে যমুনা নদীতে প্রাথমিকভাবে জিওব্যাগ ফেলানোর উদ্যোগ গ্রহণ করলে ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা পেত তারা। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ঝোটন চন্দ জানান, যমুনা নদীতে আবারও ভাঙনের বিষয়টি টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অবহিত করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

https://twitter.com/WDeshersangbad


বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

বঙ্গবন্ধু কাতরকণ্ঠে বলেন, মারাত্মক বিপর্যয়

https://www.facebook.com/Dsangbad

https://www.facebook.com/Dsangbad

© All rights reserved © 2011 deshersangbad.com/
Design And Developed By Freelancer Zone