শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:১৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
রাজধানী থেকে প্রায় এক কোটি টাকার মাদক উদ্ধার নতুনধারা রংপুর-রাজশাহীর সমন্বয়কারী হলেন নিপা অসহায় রাজিয়ার পাশে দাঁড়ালেন সুজন লালপুরের সংঘবদ্ধ হ্যাকার চক্রের ৮ সদস্য গ্রেপ্তার তানোরে বিনামুল্য কৃষি উপকরণ বিতরণ ই-অরেঞ্জ বিনিয়োগ করা টাকা ফেরতের দাবিতে গ্রাহকদের মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ ক্রেতাদের স্বাচ্ছন্দ্য বৃদ্ধিতে বনশ্রীতে স্যামসাং অথোরাইজড সার্ভিস সেন্টার উদ্বোধন করলো জবাই বিলের নাম শুনলে আড়ৎদারদের মাছ কেনার প্রতি আগ্রহ বাড়ে-খাদ্যমন্ত্রী বোচাগঞ্জে রাইস গ্রেইন ভেলু চেইন একটরর্স মিটিং নোয়াখালীরবেগমগঞ্জে অস্ত্র-গুলিসহ কিশোর গ্যাং সদস্য গ্রেফতার বাতিল হচ্ছে ২১০পত্রিকার ডিক্লারেশন,দেওয়া হবে নতুন ডিক্লারেশন ট্যাক্সিক্যাব চালিয়ে তিন বছরে পবিত্র কোরআন মুখস্থ করেন এক ব্রিটিশ মুসলিম কাভার্ড ভ্যান-ট্রাক মালিক-শ্রমিকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার করোনায় আরও ৩৬ মৃত্যু, শনাক্ত ১,৩৭৬ যার ওপর সূর্য উদিত হয়েছে তার মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ দিন হল জুমার দিন

উন্নত সেবা দেওয়ার নামে ক্লিনিকগুলো দিনের পর দিন চালিয়ে যাচ্ছে অবৈধ ব্যবসা !

গ্রামের অসহায় দরিদ্র মানুষদের জিম্মি করে উন্নত সেবা দেওয়ার নামে ক্লিনিকগুলো দিনের পর দিন চালিয়ে যাচ্ছে অবৈধ ব্যবসা !ঝিনাইদহের সিমান্ত সাধুহাটি ডাকবাংলা ও বৈডাঙ্গা এলাকায় হাতুড়ে ডাক্তার দিয়েই চলে সার্বক্ষনিক ক্লিনিক ব্যবসা, নেই কোন অজ্ঞান বা অবস করার ডাক্তার
জাহিদুর রহমান তারিক, ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহ সদর উপজেলার সিমান্ত সাধুহাটি ডাকবাংলা ও বৈডাঙ্গা এলাকার অধিকাংশ ক্লিনিকের ব্যবসা চলে ডাক্তার ছাড়া মর্মে ব্যাপক অভিযোগ উঠেছে। এসব ক্লিনিক গুলোতে ছোট খাটো ও মেজর অপরেশনও করা হাতুড়ে ডাক্তার দিয়ে। নেই কোন প্রশিক্ষিত নার্স। অপারেশনের জন্য রোগী এলে আশপাশের হাসপাতাল থেকে ডাক্তার এনে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে প্রায়ই রোগীর মৃত্যুসহ বিভিন্ন ধরনের দূর্ঘটনা ঘটে। সরজমিনে পরিদর্শনে গেলে আল জিজিয়া (প্রাঃ) হাসপাতাল এন্ড ডায়াগোনস্টিক সেন্টার ও ডাকবাংলা নাসিং হোমে দেখা যায়, কোন এমবিবিএস ডাক্তার নাই, এমনকি কোন প্রশিক্ষিত নার্স, ডিপ্লোমা টেকনোলজিস্ট কিছুই নাই। একজন হাতুড়ে ডাক্তার দিয়েই চলে সার্বক্ষনিক সেবা। অপারেশনের সময় কোন অজ্ঞান বা অবস করার ডাক্তার রাখা হয় না। সার্জিক্যাল ডাক্তার দিয়েই এই কাজ চালানো হয়। এসব কারনে প্রতিনিয়ত ঘটছে দূর্ঘটনা। গ্রামের অসহায় দরিদ্র মানুষদের জিম্মি করে উন্নত সেবা দেওয়ার নামে এসব ক্লিনিকগুলো দিনের পর দিন চালিয়ে যাচ্ছে অবৈধ ব্যবসা। আলজিজিয়া (প্রাঃ) হাসপাতালের স্বত্বাধিকারী আঃ মান্নান ছিলেন উপসহকারী কমিউনিটি মেডিক্যাল অফিসার। অবসর গ্রহনের পর থেকে তিনি এই ক্লিনিকের ডাক্তার হিসেবে নিয়মিত সেবা দিয়ে আসছেন। তার ক্লিনিকের সাইনবোর্ডে ও ফাইলে ডাঃ মোঃ আব্দুল মান্নান লিখা আছে, কিন্তুু তার রোগী দেখার প্যাডে মোঃ আবাদুল মান্নান লেখা। এছাড়া কোন ডাক্তার আছে বলে জানা যায়নি। ডাকবাংলা নাসিং হোমের স্বত্বাধিকারী আসাদুজ্জামান কাজল। ডাক্তার হিসেবে আছেন এস আই রেজা কিন্তু তার কোন ডাক্তারি সনদপত্র নাই। ভূয়া ডাক্তার হয়েও দিনের পর দিন এই ক্লিনিকে ডাক্তার হিসেবে সেবা প্রদান করে আসছে। ডাক্তারি প্যাডে ডাঃ এস আই রেজা, ডিপিএমসি (ঢাকা) পিএমসিএইচএফপি, নবজাতক শিশু ও কিশোর রোগে বিশেষ অভিজ্ঞ, সহকারী চিকিৎসক (মা ও শিশু স্বাস্থ্য), মা ও শিশু (প্রাঃ) হসপিটাল(ঢাকা) লেখা আছে। তার একটি প্রচারপত্রে শিশুদের ২৪টি রোগের চিকিৎসা সেবা দেওয়ার কথা লেখা আছে। এবিষয়ে ডাকবাংলা নাসিং হোমের মালিক কাজল বলেন এসআই রেজা নামে আমার কোন ডাক্তার নেই। সার্বক্ষনিক কোন এমবিবিএস ডাক্তার নেই তবে ডিপ্লোমা নার্স ও পার্টটাইম টেকনিশিয়ান আছে। এ বিষয়ে ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন ডাঃ সেলিনা বেগম জানান এমবিবিএস ছাড়া কেও ডাক্তার লিখতে পারবে না। যদি কেও লিখে থাকে সে মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছে, আমরা তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নিবো।

Please Share This Post in Your Social Media

https://twitter.com/WDeshersangbad

https://www.facebook.com/Dsangbad

https://www.facebook.com/Dsangbad

All rights reserved © deshersangbad.com 2011-2021
Design And Developed By Freelancer Zone